সার্বিয়ার বিপক্ষে যে কৌশলে খেলতে চায় ব্রাজিল

বরাবরের মত ফেবারিটের তকমা গায়ে লাগিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করতে যাচ্ছে দক্ষিণ আমেরিকান জায়ান্ট ব্রাজিল।সার্বিয়ার বিপক্ষে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ১টায় লুসাইল স্টেডিয়ামে ম্যাচ দিয়ে পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা কাতারের যাত্রা শুরু করবে। তবে হেক্সা মিশনে ফেবারিটের মোড়কে চাপানো প্রত্যাশা থেকে বেড়িয়ে ভামুক্ত হয়ে ভাল খেলা উপহার দিতে চায় তিতে বাহিনী।

 

 

হতাশার চাদর সরিয়ে আরও একবার নেইমারের হাতে স্বপ্নের মশাল তুলে দিয়ে কাতার বিশ্বকাপে পরম আরাধ্য ‘হেক্সা’ (ষষ্ঠ শিরোপা) জয়ের অভিযাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে ব্রাজিল।

 

 

দোহার লুসাইল স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাত ১টায় সার্বিয়ার মুখোমুখি হবে রেকর্ড পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। এই মাঠেই গত পরশু মেসির আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে বিশ্বকাপ ইতিহাসের সবচেয়ে বড় অঘটনের জন্ম দিয়েছে সৌদি আরব। ফিফা র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকলেও তাই সার্বিয়াকে নিয়ে সতর্ক ব্রাজিল। গত বিশ্বকাপে ইউরোপের দলটিকে তারা হারিয়েছিল ২-০ গোলে।

 

 

ফর্ম ও স্কোয়াডের গভীরতার কারণে ব্রাজিলকে এবার শিরোপার সবচেয়ে বড় দাবিদার ভাবা হচ্ছে। অঘটনের আশায় প্রথম ম্যাচে রক্ষণাত্মক কৌশল বেছে নিতে পারে সার্বিয়া।

 

 

ব্রাজিলীয় মিডিয়ার দাবি, সেই রক্ষণ দেওয়াল ভাঙতে আজ একাদশে চার ফরোয়ার্ড খেলাবেন সেলেকাও কোচ তিতে। আক্রমণভাগে নেইমারের সঙ্গে থাকবেন রিচার্লিসন, রাফিনিয়া ও ভিনিসিয়ুস জুনিয়র।

 

 

ম্যাচের আগেরদিন সংবাদ সম্মেলনে আসা রাফিনিয়াও বললেন, আক্রমণই হবে তাদের শেষ কথা, ‘ডিএনএ’র কারণেই আমরা আক্রমণাত্মক দল। আক্রমণভাগে যত বেশি খেলোয়াড় থাকে, ততই ভালো।’

 

 

ইউরোপীয়ান আসরের কৃতিত্ব এখন বৈশ্বিক সর্বোচ্চ মঞ্চে প্রমান করাই স্টোকোভিচের সামনে মূল চ্যালেঞ্জ। এর আগে কখনই ব্রাজিলের মত টুর্নামেন্টের হট ফেবারিট দলের বিপক্ষে বিশ্বকাপ শুরু করেনি সার্বিয়া। যে কারনে ম্যাচের আগে মানসিক ভাবে চাঙ্গা থাকাটাও দলের জন্য এই মুহূর্তে খুবই জরুরী।

 

 

সব মিলিয়ে বিশ্বকাপে শেষ ৯টি ম্যাচের সাতটিতেই পরাজিত হয়েছে সার্বিয়া। ইউরোপের কোন দেশ হিসেবে এটাই সর্বোচ্চ পরাজয়। এবারের বিশ্বকাপে খেলতে আসা দলগুলোর মধ্যে আট পরাজয়ে একমাত্র অস্ট্রেলিয়া তাদের থেকে এগিয়ে আছে।

১৯৯৮ আসরের পর বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে কখনো হারেনি ব্রাজিল। এই পর্যায়ে টানা ১৫ ম্যাচে অপরাজিত তারা। বিপরীতে বিশ্বকাপে শেষ নয় ম্যাচের সাতটিতেই হেরেছে সার্বিয়া। শতভাগ ফিট না হওয়ায় আজ শুরুর একাদশে হয়তো দেখা যাবে না সার্বিয়ার সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা আলেকসান্দার মিত্রোভিচকে। সব মিলিয়ে রুসাইলে আরেকটি ভূমিকম্পের সম্ভাবনা ক্ষীণ!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *