Breaking News

গভীর রাতে আসিফের বাসায় গিয়ে স্ত্রী কাছে বিয়ের অনুমতি চান দীপা খন্দকার

বাংলা গানের ‘যুবরাজ’খ্যাত সংগীত শিল্পী আসিফ আকবরের সঙ্গে জনপ্রিয় অভিনেত্রী দীপা খন্দকারের প্রেমের বিষয়টি পুরনো। সেই পুরনো প্রেম সামনে এনেছেন আসিফ নিজেই। সম্প্রতি প্রকাশিত তাঁর জীবনীগ্রন্থ ‘আকবর ফিফটি নট আউট’-এ প্রসঙ্গটি স্থান পেয়েছে।

 

 

আসিফকে বিয়ের জন্য চাপ দিয়েছিলেন অভিনেত্রী দীপা খন্দকার। আসিফ রাজি না হওয়ায় শিল্পীর বাসায় গিয়ে তার স্ত্রী মিতুর কাছে বিয়ের অনুমতি চেয়েছিলেন দীপা। এমনকি বিয়ে না করলে দীপা আত্মহ’ত্যা করবেন বলেও আসিফের মনে হয়েছিল। সাহস পাবলিকেশন্স থেকে সম্প্রতি প্রকাশিত বইটিতে আসিফ ও দীপার প্রেমের উপাখ্যান বিস্তারিত বর্ণনা করেছেন বইটির লেখক সোহেল অটল।

 

 

বইটি পড়ে জানা যায়, শিল্পী হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার পর আমেরিকা ট্যুরে গিয়ে আসিফ-দীপার ঘনিষ্ঠতা হয়। তাদের প্রেমের সূত্রপাত সেখান থেকেই। টানা কয়েক বছর প্রেম করার পর আসিফ আকবরকে বিয়ের জন্য চাপ দেন দীপা। আসিফকে তার স্ত্রী-সন্তান ছেড়ে আসার জন্যও বলেন। বইয়ের ২৫১ পৃষ্ঠায় লেখা হয়েছে:

 

 

‘একদিন রাত দুটোর সময় আসিফের সঙ্গে তার বাসায় যান দীপা খন্দকার। সেখানে গিয়ে আসিফের স্ত্রী মিতুর কাছে বিয়ের অনুমতি চান তিনি।’

 

 

বইয়ে প্রকাশিত বর্ণনা অনুযায়ী দীপা মিতুকে বলেন, আসলে আমেরিকা থেকে আমাদের সম্পর্কটা শুরু হয়। এখন ও (আসিফ) আমাকে বিয়ে করতে চাচ্ছে না। বলছে দুই দিক একসাথে সামলাতে পারবে না। আপনি আমাদের বিয়ে করার অনুমতি দিন প্লিজ। বইয়ের সূত্রে জানা যায়, সেদিন আসিফের স্ত্রী তাকে বিয়ের অনুমতি দেননি। এ ঘটনার কিছুদিন পর দীপা খন্দকার বিয়ে করেন নির্মাতা শাহেদ আলী সুজনকে।

 

 

‘আকবর ফিফটি নট আউট’ বই থেকেই জানা যায়, দীপা খন্দকারকে আমেরিকা পাঠিয়ে দিতে চেয়েছিলেন আসিফ। সেখানেই বিয়ে করে রাখতে চেয়েছিলেন দীপাকে। দীপা সে প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। বইটির ৩৬২ পৃষ্ঠায় এ প্রসঙ্গে লেখা রয়েছে, ‘দীপার কথা ভাবলে মনে হয়, দীপা ব্যক্তিত্বসম্পন্ন মেয়ে ছিল বলেই তাকে ভালোবেসেছিলেন। শ্রদ্ধাবোধ থেকেই দীপার প্রতি অনুরক্ত হয়েছিলেন। দীপার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কটা নেই আসিফের, তবে শ্রদ্ধাটা রয়ে গেছে।’

About admin

Check Also

স্পেনে যেভাবে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পেলেন বাঁধন

অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধনের অর্জনের খাতায় যুক্ত হয়েছে আরও একটি প্রাপ্তি। এবার তিনি পুরস্কৃত হয়েছেন …

Leave a Reply

Your email address will not be published.