অক্টোবরেও কেন গরম বেশি, কারণ জানালো আবহাওয়া অধিদপ্তর

বৃষ্টি বেড়ে কিছুটা কমতে পারে গরম। একই সঙ্গে সারাদেশের ১৮টি জেলায় চলমান তাপপ্রবাহ কোথাও কোথাও থেকে দূর হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ুর বিদায় নেওয়ার সময় আশ্বিনের শেষদিনে গরমে পুড়ছে প্রায় সারাদেশ। দেশের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি।

 

 

আবহাওয়াবিদ মো. আরিফ হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, ‘বৃষ্টিটা একটু বাড়বে, আর বাড়লে তাপমাত্রাও কিছুটা কমবে। বিকেল বা সন্ধ্যা নাগাদ ঢাকায় বৃষ্টির সম্ভাবনা আছে।’তিনি বলেন, ‘এখন স্বাভাবিকের চেয়ে তাপমাত্রা ৩ থেকে ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। রাতের তাপমাত্রাও ২ ডিগ্রির মতো বেশি আছে।’

 

 

তাপমাত্রা বেশি থাকার কারণ জানিয়ে এ আবহাওয়াবিদ বলেন, ‘অক্টোবর মাসে কোনো কোনো বছর তাপমাত্রা বেশি থাকে। কারণ অক্টোবরে এসে বৃষ্টিপাতটা অনেকটাই কমে যায়। সেপ্টেম্বরের চেয়ে অক্টোবরে বৃষ্টিপাত অর্ধেকের চেয়েও কম হয়। এবার দেশ থেকে যখন দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু বিদায় নিচ্ছে, ঠিক ওই সময়েই বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এ কারণে প্রচুর পরিমাণ জলীয় বাষ্প সমৃদ্ধ বাতাস স্থলভাগের দিকে আসে। যে কারণে ভাদ্র মাসের মতো ভ্যাপসা গরম লাগছে। এ অবস্থায় বৃষ্টি যতক্ষণ না হয়, ততক্ষণ গরম কমে না।’

 

 

‘মূলত বৃষ্টি না হওয়ার কারণেই এবার এ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। সাধারণত অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহ থেকে দেশে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু বিদায় নিতে শুরু হবে। দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে পুরোপুরি বিদায় নেয়। কোনো কোনো বছর এটা একটু দেরিতে হয়। এবার দেরি হচ্ছে, এবার মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশ থেকে পুরোপুরি বিদায় নিতে ২২/২৩ অক্টোবর পর্যন্ত লেগে যাবে।’

 

 

১৮, ১৯ ও ২০ অক্টোবরের দিকে বৃষ্টিপাত বাড়তে পারে জানিয়ে আরিফ হোসেন বলেন, ‘লঘুচাপটি এখন উড়িষ্যা-অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলে আছে। এটির প্রভাবেই বাংলাদেশে বৃষ্টি বাড়বে।’

 

 

শনিবার সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, খুলনা, বরিশাল চট্টগ্রাম বিভাগের অনেক জায়গায় রাজশাহী ও ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রংপুর, সিলেট ও ময়মনসিংহ বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

 

 

ঢাকা, টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, ময়মনসিংহ, কুমিল্লা, নোয়াখালী, ফেনী, চাঁদপুর, পাবনা, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, দিনাজপুর, পঞ্চগড়, যশোর, খুলনা, বরিশাল, ভোলা এবং সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে মৃদু তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে তা কিছু কিছু জায়গায় প্রশমিত হতে পারে। এ সময়ে সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা সামান্য কমতে পারে বলেও পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে।

শুক্রবার দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল বগুড়ায় ৩৮ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শুক্রবার সকাল ৯টা শনিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল ও রাজশাহী বিভাগে বৃষ্টি হয়েছে। এ সময়ে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে সাতক্ষীরায়, ৫৪ মিলিমিটার।

About admin

Check Also

ডিসেম্বরে ঝড়ের আশঙ্কা

বঙ্গোপসাগরের আন্দামান দ্বীপপুঞ্জের কাছে নতুন একটি লঘুচাপ সৃষ্টির আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ডিসেম্বরের শুরুতে ওই লঘুচাপটি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *